দৈনিক গৌড় বাংলা

সোমবার, ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৬ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

আমেরিকার প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে ‘কাজলরেখা’

হলিউডের বহু সিনেমায় আমেরিকার বিভিন্ন রূপকথা উঠে এসেছে। সেগুলোর সিনেমাটিক উপস্থাপন দেখে এ দেশের দর্শকও মুগ্ধ হয়। কিন্তু এবার আমেরিকানরা দেখবে বাংলার রূপকথা। কারণ তাদের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে ঢাকার সিনেমা ‘কাজলরেখা’। যেটার পটভূমি চারশ বছরের পুরনো বাংলার এক লোকগাঁথা। পরিবেশনা সংস্থা সূত্রে জানা যায়, প্রথম সপ্তাহে কানাডার আট ও আমেরিকার সতেরো থিয়েটারে ‘কাজলরেখা’ মুক্তি পাচ্ছে। হলিউড ও বলিউডের সিনেমার চাপে প্রথম সপ্তাহে সীমিত থিয়েটারে মুক্তি পেলেও পরবর্তী সপ্তাহগুলোতে আরো থিয়েটার যোগ হতে পারে বলে আশা প্রকাশ করেছেন আন্তর্জাতিক পরিবেশক স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো-এর প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ অলিউল্লাহ সজীব। রোজার ঈদে মুক্তি পেলেও প্রায় দুই মাস পরেও দেশের সিনেপ্লেক্সে এখনো ‘কাজলরেখা’ চলছে। ইতোমধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের মাস্টার্স এর কোর্সে যুক্ত করা হয়েছে ‘কাজলরেখা’ সিনেমা। গিয়াস উদ্দিন সেলিম এর সিনেমার অন্যতম আকর্ষণ সিনেমার দুই ডজন গান। সংগীত পরিচালনা করেছেন ইমন চৌধুরী। এ সিনেমার মাধ্যমে বড়পর্দায় অভিষিক্ত হয়েছেন মন্দিরা চক্রবর্তী ও সাদিয়া আয়মান। গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন শরিফুল রাজ। আছেন মিথিলা, আজাদ আবুল কালাম, ইরেশ যাকেরসহ অনেকে। সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশা, যারা প্রবাসে থাকেন এবং বহু ভাষা ও সংস্কৃতির মাঝে নিজের দেশকে খোঁজেন তাদের মধ্যে ‘কাজলরেখা’ সাড়া জাগাতে পারে। এদিকে, মুক্তির আগে ‘কাজলরেখা’ নিয়ে প্রবাসীদের মাঝে বেশ আগ্রহ দেখা গেছে। প্রচারণার অংশ হিসেবে টাইমস স্কয়ারে প্রদর্শিত হয়েছে সিনেমাটির প্রমো। চলছে পোস্টারিং, পত্রিকার বিজ্ঞাপনসহ নানা প্রচারণা। প্রায় ৪০০ বছরের পুরনো প্রেক্ষাপটে ময়মনসিংহের গীতিকার একমাত্র রূপকথা অবলম্বনে ‘কাজল রেখা’ তৈরি করেছেন গিয়াসউদ্দিন সেলিম। এর আগে চারটি ছবি মুক্তি পেলেও নির্মাতা জানান, তার পঞ্চম ছবি ‘কাজলরেখা’ হচ্ছে সবচেয়ে ব্যয়বহুল ছবি।

About The Author