আবারও শীর্ষে ফিরল বার্সা

2

আক্রমণের ঝড় তুলে শুরুর দিকেই লিড পেয়ে গেল বার্সেলোনা। এরপর সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে ছন্দহীন হয়ে পড়ল তারা। মরিয়া হয়ে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করল সেল্তা ভিগো। একাধিক সুযোগ হারিয়ে শেষ পর্যন্ত হতাশাই সঙ্গী হলো তাদের। কোনোমতে জিতে লা লিগার পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে ফিরল শাভি এরনান্দেসের দল। কাম্প নউয়ে রোববার রাতে লিগ ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা। ব্যবধান গড়ে দেওয়া গোলটি করেছেন পেদ্রি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গত সপ্তাহে ইন্টার মিলানের মাঠে হারলেও ঘরোয়া লিগে জয়ের ধারা ঠিকই ধরে রাখল কাতালান দলটি। গোলশূন্য ড্রয়ে আসর শুরুর পর টানা সাত ম্যাচ জিতল তারা। আর জাল অক্ষত রাখল সবশেষ ছয়টিতে। দশম মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগ পায় বার্সেলোনা। বক্সের ভেতর থেকে রাফিনিয়ার শট ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক আগুস্তিন মার্চেসিন। তিন মিনিট পর আসে আরেকটি বড় সুযোগ। এবার ফেররান তরেসের প্রচেষ্টাও রুখে দেন ৩৪ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক। সপ্তদশ মিনিটে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। বাঁ দিক থেকে গাভির পাস ডি-বক্সে ক্লিয়ার করতে পারেননি সেল্তার ডিফেন্ডার উনাই নুনেস। গোলরক্ষক আগেই সরে যান অন্য প্রান্তে। ছুটে গিয়ে কাছ থেকে ফাঁকা জালে বল পাঠান পেদ্রি। গোল হজমের পর মরিয়া হয়ে ওঠে সফরকারীরা।

৩৩তম মিনিটে সমতায় ফেরার ভালো একটি সুযোগও পেয়ে যায় তারা। তবে লারসেনের হেড লক্ষ্যে থাকেনি। দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে সুবর্ণ সুযোগ নষ্ট করেন দলটির অস্কার রদ্রিগেস। ইয়াগো আসপাসের পাস ডি-বক্সে ফাঁকায় পেয়ে বাইরে মারেন তিনি। ৬৩তম মিনিটে একসঙ্গে তিনটি পরিবর্তন আনেন বার্সেলোনা কোচ। তরেস, পেদ্রি ও রাফিনিয়াকে তুলে মাঠে নামান আনসু ফাতি, ফ্রেংকি ডি ইয়ং ও উসমান দেম্বেলেকে। চোট কাটিয়ে ফেরেন ডাচ মিডফিল্ডার ডি ইয়ং। পাঁচ মিনিট পর সেল্তার লারসেন হেডে বল জালে পাঠালেও অফসাইডের কারণে গোল মেলেনি। শেষ দিকে সফরকারীদের গোল না পাওয়াটাই যেন অবিশ্বাস্য। আসপাসের একটি শট ঠেকান মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। তাদের আরেকটি প্রচেষ্টা বাধা পায় পোস্টে, যদিও অফসাইডের পতাকা তোলেন লাইন্সম্যান। স্বস্তির জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে স্বাগতিকরা। আট ম্যাচে সাত জয় ও এক ড্রয়ে বার্সেলোনার পয়েন্ট ২২। সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল পার্থক্যে পিছিয়ে দুই নম্বরে নেমে গেছে রিয়াল মাদ্রিদ। লিগে পরবর্তী ম্যাচে আগামী রোববার সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে ক্লাসিকোয় মুখোমুখি হবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দল দুটি। এর আগে বুধবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ইন্টারের বিপক্ষে খেলবে বার্সেলোনা। আগের দিন রিয়ালের প্রতিপক্ষ শাখতার দোনেৎস্ক।