আবরার হত্যা সিলেটে গ্রেপ্তার আরো একজন

4

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা মামলায় আরো একজনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্য বিভাগ। গ্রেপ্তারকৃত হলেন মো. মাজেদুল ইসলাম (২১)। তিনি বুয়েটের এমএমই বিভাগের ১৭তম ব্যাচের ছাত্র। শুক্রবার তাকে সিলেটের শাহ কিরন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।
ডিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার মাসুদুর রহমান জানান, শুক্রবার ভোর ৪টায় সিলেটের শাহ কিরন এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা দক্ষিণ বিভাগের ধানমন্ডি জোনাল টিম। মাজেদুল আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি বলে জানিয়েছে পুলিশ।
রবিবার দিবাগত রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের নিচতলা ও দুইতলার সিঁড়ির করিডোর থেকে আবরার ফাহাদের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। সোমবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে আবরারের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ লাশের ময়নাতদন্ত করেন। তিনি বলেন, ‘ছেলেটিকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।’
নিহত আবরার বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন। এই ঘটনায় নিহতের বাবা মো. বরকত উল্লাহ চকবাজার থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।