আগে আমাদের অভ্যেস বদলাতে হবে : মিথিলা

6

‘আমাদের যেসব খবর নিয়ে বেশি কথা বলা উচিত। বেশি বেশি হ্যাশট্যাগ দেওয়া উচিত, তা নিয়ে কথা বলছি না। উল্টো উদ্ভট, বিভ্রান্তিকর খবর নিয়ে মাতামাতি করছি। এই অভ্যেসটা আগে আমাদের বদলাতে হবে।’Ñকথাগুলো বললেন অভিনেত্রী, উন্নয়নকর্মী মিথিলা। শনিবার ঢাকা থেকে নিজের শ্বশুরবাড়ি কলকাতায় ফিরে গেছেন মিথিলা। টানা ২ মাস পর আবারো কলকাতা। তবে এই সময়টাতে শুধু ঢাকাতেই ছিলেন না। বরং অফিসের কাজে আফ্রিকা ট্যুর দিলেন।

ফেরার পথে তুরস্ক ট্রানজিট ছিল বলে সেখানে দু’দিন বেড়িয়েও গেছেন। সম্প্রতি তাহসান, শবনম ফারিয়াসহ মিথিলাকে নিয়ে একটি মামলা হয়েছে, যার আগাম জামিন পেয়েছেন তিনি। এই বিষয়ে ভীষণ বিব্রত হয়েই মিথিলা বলেন, ‘দেখুন, এই ধরনের মামলার যে কোনো শক্ত ভিত্তি নেই, তা আদালত বুঝেছেন। সেকারণেই আগাম জামিন দিয়েছেন। একজন ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর কখনোই সেই প্রডাক্ট বা কোম্পানির বিক্রয় বিপণনের দায় নিতে পারে না। ধরুন, একটি কোমল পানীয়ের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর আমি। এখন সেই পানীয় পান করে যদি কারো হঠাৎ ডায়রিয়া হয়, এজন্য কী আমাকে দায়ী করা হবে? খারাপ লাগে এই ভেবে যে, এসব ইস্যুর বাইরে আমাদের দেশে নারী নির্যাতন নিয়ে কী পরিমাণ ভয়াবহ খবর বেরুচ্ছে।

অজপাড়াগাঁয়ের কথা বাদ দিলাম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীও খুন হচ্ছে। এগুলো নিয়ে স্যোশাল মিডিয়ায় আলোচনার ঝড় তোলা দরকার। কিন্তু তা করছি না। সকল মনোযোগ যেন ফেক আর হালকা খবরে। এটা খুবই দুঃখজনক।’ উল্লেখ্য, মেটা (পূর্ব নাম ফেসবুক) ও বহ্নিশিখা নামের একটি নারীবাদী সংগঠনের ব্যানারে পারিবারিক নির্যাতনের বিরুদ্ধে মিথিলা কথা বলছেন দীর্ঘদিন। নিয়মিত জনসচেতনতামূলক ভিডিও বার্তাও দিচ্ছেন সেখানে। এর বাইরে কলকাতা থেকে আপাতত মাস তিনেকের আগে ফিরছেন না তিনি।

কারণ ওপার বাংলায় প্রসেনজিতের সঙ্গে তার একটি ছবির কাজের বাকি অংশ শেষ করবেন। এর পাশাপাশি অর্ণব ব্যানার্জী রিঙ্গোর পরিচালনায় নতুন ছবির শুটিংয়ে টানা ১ মাস ব্যস্ত থাকবেন। এ ছাড়া কন্যা, স্বামী-সংসারের দিনাতিপাত তো রয়েছেই। মিথিলা বলেন, ‘আমাদের দর্শকরা খুবই সংবেদনশীল। এটাকে আমি মেনে নিচ্ছি। কিন্তু এই সংবেদনশীলতা সঠিক জায়গায় কাজে লাগিয়ে সোচ্চার হওয়া প্রয়োজন। আমি প্রথম থেকেই সাইবার বুলিং, নারী নির্যাতন থেকে শুরু করে সকল সামাজিক অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলেছি। ভবিষ্যতেও বলে যাবো।’