আগামী দিনে আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও প্রয়াস তার কর্মপরিধি বিস্তৃত করবে : পুলিশ সুপার

12

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২০২০ ও ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ অতিদরিদ্র পরিবারের ৩৫ জন মেধাবী শিক্ষার্থীকে ১২ হাজার করে ৪ লাখ ২০ হাজার টাকা শিক্ষাবৃত্তি দিয়েছে প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটি। এ নিয়ে ৩৬৫ জন শিক্ষার্থীকে ১২ হাজার করে মোট ৪৩ লাখ ৮০ হাজার টাকার শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হলো।
মঙ্গলবার সকালে জেলাশহরের বেলেপুকুরে প্রয়াসের নকীব হোসেন মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষাবৃত্তির চেক তুলে দেন, পুলিশ সুপার এএইচএম আব্দুর রকিব। পরে দিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক মহা. জিয়াউল হক। প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক হাসিব হোসেনের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য দেন, প্রয়াসের পরিচালক মুখলেছুর রহমান। শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য দেনÑ নাচোল মহিলা কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী মারুফা খাতুন এবং শিবগঞ্জ উপজেলার আলাবক্স মেমোরিয়াল ডিগ্রি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দেয়া শিক্ষার্থী আফরোজা খাতুন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন প্রয়াসের কনিষ্ঠ সহকারী পরিচালক মু. তাকিউর রহমান।
পিকেএসএফের সহায়তায় ২০১২ সাল থেকে প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটি এই শিক্ষাবৃত্তি চালু করে।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার এএইচএম আব্দুর রকিব শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরা আজকের শিক্ষাবৃত্তি পাওয়াটা চমৎকার সুযোগ হিসেবে দেখ। তোমরা যদি সমাজের উপরের লেভেলে যেতে চাও, তাহলে পরিশ্রমের কোনো বিকল্প নেই। তুমি যাই কিছু করো না কেন, তোমাকে পরিশ্রম করতে হবে। সবকিছুই পরিশ্রমের কাজ। সেই পরিশ্রমের কাজটা তখনই সহজ হয়, যখন তুমি ছোটবেলা থেকেই সুযোগগুলো খোলা রাখো। তোমাদের সুযোগগুলো কখনো কমাইও না। আর সেই সুযোগগুলো কাজে লাগানোর একমাত্র উপায় হচ্ছে রেজাল্ট ভালো করা। আর সেটার জন্য লেখাপড়া ও পরিশ্রম করা ছাড়া কোনো উপায় নেই। তিনি আরো বলেন, তোমরা যদি স্বপ্ন দেখার বিষয়গুলো সোজা রাখো, এমন কিছু করো যাতে সমাজের ও পরিবারের জন্য কিছু করতে পারো; সেটাই তোমাদের লক্ষ্য হওয়া উচিত। তাহলে তুমি যেটাই করো না কেন, সবক্ষেত্রে তুমি সফল হবে। তোমার স্বপ্ন যেন একটা ভালো মোবাইল বা একটা মোটরসাইকেল কেনা না হয়। তিনি বলেন, স্বপ্ন পরিবর্তনের জন্য মানুষের লাইফের পরিবর্তন হয়ে যায়। তাই প্রথমে নিজের জীবনটা আগে সেট করো, তারপরে অন্য কিছু। তাই নিজেকে আগে তৈরি করো।
পুলিশ সুপার বলেন, আমি এতদিন জানতাম প্রয়াস শুধু স্থানীয়ভাবে কাজ করে। কিন্তু আজ জানতে পারলাম উত্তরাঞ্চলজুড়ে অনেক মানুষকে নিয়ে কাজ করছে। অনেক জনবল এখানে কাজ করে। আমি বিশ্বাস করি, আগামী দিনে দেশের গণ্ডি  পেরিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও প্রয়াস তার কর্মপরিধি বিস্তৃত করবে। তিনি প্রয়াস ও পিকেএসএফকে ধন্যবাদ জানান।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক মহা. জিয়াউল হক বলেন, আমার ভাবতেই ভালো লাগে যে, চাঁপাইনবাবগঞ্জের একটি প্রতিষ্ঠান প্রয়াস তাদের কর্মতৎপরতা ও কাজের দ্বারা বিভিন্ন এলাকায় কাজ করছে। আমি যখন বিভিন্ন জেলায় বিদ্যালয় পরিদর্শনে যাই আর যখন প্রয়াসের সাইনবোর্ড দেখি তখন মনটা ভরে যায়। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, শিক্ষাবৃত্তি আপনারা যে পাচ্ছেন, এটা ভালো একটা দিক। সরকারি শিক্ষাবৃত্তি নিয়ে অনেক স্টুডেন্ট সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তারা আমাদের জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে অবদান রাখছে। এটা গর্ব করার মতো একটা ব্যাপার। তিনি আরো বলেন, এটা কোনো দান নয় এটা আপনি আপনার মেধা দিয়ে অর্জন করেছেন। আপনারা চেষ্টা করলে লক্ষে পৌঁছাতে পারবেন। আপনি কখনো থেমে যাবেন না, আপনার লক্ষ্য পূরণ করার জন্য আপনি আপনার কর্মতৎপরতা ঠিক রাখবেন, তাহলে আপনি একদিন আপনার গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবেন।
সভাপতির বক্তব্যে প্রয়াসের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক হাসিব হোসেন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা আজকে পড়ালেখা করছেন, সেই সাথে ভালো রেজাল্ট করেছেন বিধায় এই শিক্ষাবৃত্তি আপনারা পাচ্ছেন। আমাদের ৮০ হাজার সদস্যের মধ্যে থেকে আপনাদের নির্বাচন করা হয়েছে। প্রয়াস চাঁপাইনবাবঞ্জ, রাজশাহী, নাটোর, নওগাঁ, জয়পুরহাট এলাকায় ৭১টি ব্রাঞ্চ অফিস নিয়ে কাজ করছে। সেখানে আমরা প্রায় ৯০ হাজার পরিবারের সাথে প্রতি সপ্তাহে যোগাযোগ করছি। এসব পরিবারের মধ্যে থেকে ৩৫ জনকে বাছাই করে আজকে শিক্ষাবৃত্তি দিচ্ছি।
হাসিব হোসেন বলেন, আমরা প্রায় ৪৩ লাখ টাকা তিনশোর উপরে শিক্ষার্থীকে দিয়েছি। এর মধ্য দিয়ে প্রয়াস শিক্ষাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি সরকারের উন্নয়ন কর্মকা-ে ভূমিকা রাখছে।
তিনি পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ)কে কৃতজ্ঞতা জানান। এসময় করোনা পরিস্থিতির সময়কার কর্মকাণ্ডের কথাও তুলে ধরেন।
প্রয়াসের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক আরো বলেন, পরিবারভিত্তিক উন্নয়নের জন্য এবং সমাজকে আরো বেগবান করার জন্য, সকলের সম্মিলিত চেষ্টায় সামাজিক উন্নয়ন আরো ত্বরান্বিত করতে আমরা কাজ করছি। তিনি বলেন, পিকেএসএফ আমাদেরকে সহায়তা করছে যার জন্য আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। সকলের ভালোবাসা, পরামর্শ ও দোয়া নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। সমালোচনা করবেন তবে তা যেন হয় ভুল ধরিয়ে দেয়ার জন্য, সামনে এগিয়ে যাবার জন্য। আমরা রেডিও মহানন্দার সম্প্রচারের মাধ্যমে সারাবিশ্বের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করেছি।
স্বাগত বক্তব্যে প্রয়াসের পরিচালক মুখলেছুর রহমান জানান, শুধু শিক্ষাবৃত্তিই নয়, ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদেরও নিয়ে প্রয়াসের কর্মসূচি চলমান রয়েছে।