আগামী জানুয়ারি থেকে বৈদেশিক মুদ্রার সমস্যা কেটে যাবে : গভর্নর

5

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আবদুর রউফ তালুকদার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন যে, আগামী জানুয়ারি মাস থেকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ সংক্রান্ত কোনো সমস্যা থাকবে না। দেশের রপ্তানি আয় ও রেমিটেন্স আমদানি ব্যয়ের তুলনায় বেশি হওয়ায় তিনি এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
রাজধানীর একটি হোটেলে বৃহস্পতিবার অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) আয়োজিত এলডিসি গ্র্যাজুয়েশন বিষয়ক এক জাতীয় সেমিনারে আবদুর রউফ বক্তৃতা করছিলেন।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের এক অনুসন্ধানে দেখা যায় যে, চলতি বছরের শুরু থেকে দেশে আমদানির পরিমাণ অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে ৮ বিলিয়ন ডলারের উপরে উঠে যায়। বিষয়টি খতিয়ে দেখে এবং আমদানিকৃত পণ্য যাচাই-বাছাই শুরু করায় আমদানির পরিমাণ কমে ৫ বিলিয়ন ডলারে নেমে আসে, যা স্বাভাবিক।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর বলেন, তদন্তে তারা আরো জানতে পেরেছেন যে, কিছু পণ্য ২০ শতাংশ থেকে ২০০ শতাংশ ওভার ইনভয়েস করে আমদানি করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমরা এই ধরনের ঘটনাগুলো পরীক্ষা করার ফলে আমদানির পরিমাণ কমে যায়।’
গভর্নর উল্লেখ করেন যে, বাংলাদেশ ব্যাংক আন্ডার-ইনভয়েসিং এবং ওভার-ইনভয়েসিং উভয় পরীক্ষা করার পাশাপাশি বৈদেশিক মুদ্রার পাচার রোধে এবং এইভাবে রাজস্ব আয় বাড়াতে কাজ করছে। তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংক শুধুমাত্র এলসির মূল্য এবং পণ্যের প্রকৃত বাজার মূল্য খতিয়ে দেখছে, যা হুন্ডির মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা পাচার রোধ করবে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন- প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস, এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন, ইআরডি সচিব শরিফা খানসহ অন্যরা।