আওয়ামী লীগকে খেলার ভয় দেখিয়ে লাভ নেই : লিটন

33

চাঁপাইবাবগঞ্জে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা মুক্তমঞ্চে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। তিনি বলেন- আওয়ামী লীগকে খেলার ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। আওয়ামী লীগ চোরাগলি দিয়ে লুকিয়ে ক্ষমতায় আসেনি, আওয়ামী লীগ বন্দুক দিয়ে মানুষ হত্যা করে ক্ষমতায় আসেনি। আওয়ামী লীগের এভাবে ক্ষমতায় আসার প্রয়োজনও হবে না। আওয়ামী লীগের সঙ্গে লক্ষ কোটি জনতা আছে। আওয়ামী লীগ ভোটে বিশ্বাস করে। ভোটের মাধ্যমেই আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেছে, আবারো ক্ষমতায় আসবে ইনশাআল্লাহ।
খায়রুজ্জামান লিটন আরো বলেন, বাংলার মাটিতে আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে না। বিএনপির সেপ্টেম্বর থেকে আন্দোলনের হুমকির বিষয়ে নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, বিএনপি রাজপথে নেমে যদি জ্বালাও-পোড়াও, অরাজকতা করে, তা-ব চালিয়ে জনগণের জানমালের ক্ষয়ক্ষতি করার চেষ্টা করে, তাহলে সেদিন থেকেই বিএনপিকে রাজপথে দাঁতভাঙা জবাব দিতে হবে। এজন্য আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকতে হবে। এসময় তিনি বলেনÑ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর ইনডেমনিটি বিল পাস করে এবং আইন করে খুনিদের বিচারের পথ রুদ্ধ করেন জিয়াউর রহমান। আমার পিতাসহ জাতীয় চার নেতাকে জেলখানায় নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। বঙ্গবন্ধু কন্যা সেদিন দেশে ফিরে তার বাবার কবর জিয়ারত করার সুযোগ পাননি। আমরা আমাদের বাবার হত্যার প্রতিবাদ করতে পারিনি। সেদিন কোথায় ছিল মানবাধিকার?, প্রশ্ন করেন তিনি।
লিটন বলেনÑ জিয়াউর রহমান ষড়যন্ত্র করে ক্ষমতায় এসে হ্যাঁ-না ভোট করে জনগণের সাথে তামাশা করে পাকাপোক্তভাবে ক্ষমতায় থাকার চেষ্টা করেন। কিন্তু তা হয়নি। পাপ কারো বাপকেও ছাড়ে না।
জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মু. জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেনÑ রাজশাহী সিটি মেয়র আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। প্রধান বক্তা ছিলেন আওয়ামী লীগের আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা এস এম কামাল।
আরো বক্তব্য দেনÑ আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ রুহুল আমিন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি আব্দুল ওদুদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম জেসি, চাঁপাইবাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. মোখলেসুর রহমান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুর রহমানসহ অন্য নেতৃবৃন্দ।