আইপিএলে এবার আসছে বাউন্সারের নতুন নিয়ম

5

সামনের আইপিএলেও দেখা যাবে নতুন একটি নিয়ম। ২০২৪ সাল থেকে ওভারপ্রতি দুটি বাউন্সার করতে পারবেন বোলাররা। এর আগে ভারতের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট সৈয়দ মুশতাক আলী ট্রফিতে পরীক্ষামূলকভাবে এ নিয়ম চালু করা হয়েছিল, আগামী মৌসুম থেকে আইপিএলের প্লেয়িং কন্ডিশনেও এ পরিবর্তন আনা হচ্ছে। আইসিসির আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির প্লেয়িং কন্ডিশন অনুযায়ী, ওভারপ্রতি একটি বাউন্সার বা কাঁধসমান উচ্চতার শর্ট বলকে বৈধ বলে গণ্য করা হয়।

এরপর থেকে ডাকা হয় নো বল। আইপিএলে সেটি বাড়িয়ে করা হচ্ছে দুটি। মানে ওভারে তৃতীয় বাউন্সারের ক্ষেত্রে ডাকা হবে নো বল। নতুন নিয়মে বোলাররা বাড়তি সুবিধা পাবেন, এমন মনে করেন একসময় আইপিএলের নিলামে সবচেয়ে বেশি দামে বিক্রি হওয়া ভারতীয় পেসার জয়দেব উনাদকাট। ইএসপিএনক্রিকইনফোকে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় ওভারে দুটি বাউন্সার বেশ কাজে আসবে এবং আমার মনে হয় এটি এমন একটা ব্যাপার, যাতে বোলাররা ব্যাটসম্যানের ওপর সুবিধা পাবে। কারণ, ধরুন একজন স্লো বাউন্সার করলৃআগে ব্যাটসম্যান নিশ্চিত থাকত যে আর বাউন্সার আসবে না। তবে এখন ওভারের প্রথম অর্ধে আপনি যদি একটা স্লোয়ার বাউন্সার করেও থাকেন, আপনি আরেকটি করতে পারবেন।’

এরপর তিনি যোগ করেন, ‘যারা বাউন্সারে দুর্বল, তাদের আরও ভালো হতে হবে। বোলারদের বাড়তি একটি অস্ত্র থাকবে। ফলে আমার মনে হয়, ছোট একটি পরিবর্তনের বড় প্রভাব আছে। বোলার হিসেবে এ নিয়মটিকে বেশ গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়।’ দ্বিতীয় বাউন্সারের নিয়ম ডেথ ওভারেও বেশ কার্যকরী হবে বলে মনে করেন ভারতের হয়ে ২২টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা এ পেসার, ‘ফাস্ট বোলারদের জন্য ডেথ ওভারের বোলিং বেশ ইয়র্কার-কেন্দ্রিক হয়ে পড়ছিল। এখন এটি ইয়র্কার হতে পারে, স্লোয়ার বল হতে পারে এবং এক ওভারে দুটি বাউন্সার হতে পারে।

আপনি যদি দ্বিতীয় বাউন্সারটি নাও করেন, ব্যাটসম্যান এরপরও ধারণা করতে পারে যে বোলার হয়তো আরেকটি বাউন্সার করবে। বাউন্সারের নিয়ম বদলালেও গতবার যুক্ত হওয়া ‘ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার’-এর নিয়ম থাকছে এবারও। এ নিয়মে ম্যাচের যে কোনো সময় একাদশের বাইরে থেকে একজন খেলোয়াড়কে নামানো যায়। এ নিয়ম অনুযায়ী, টসের সময় ইমপ্যাক্ট বদলি হিসেবে চারজনের নাম দিতে হয়, যার মধ্য থেকে একজন প্রতি ম্যাচে নামতে পারেন।

অবশ্য একাদশে যদি চারজন বিদেশি খেলোয়াড় থেকে থাকে, তাহলে ইমপ্যাক্ট বদলি হিসেবে একজন ভারতীয়কে নিতে হবে। তবে এ নিয়মে দলগুলোর কাছে অলরাউন্ডারের মূল্য কমে গেছে একেবারেই। কারণ এ নিয়মের কারণে এখন একজন ব্যাটসম্যান ব্যাটিং করতে পারেন, পরে তাঁর জায়গায় আরেকজন বিশেষজ্ঞ বোলার হিসেবে নামতে পারেন। ভারতে জাতীয় নির্বাচনের কারণে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এ লিগের সূচি এখনো ঘোষণা করা হয়নি। তবে ২২ মার্চ থেকে মে মাসের শেষ পর্যন্ত ১০ দলের এ লিগ হবে বলে জানা গেছে।