অলিম্পিকে সোনা জয়ের প্রত্যয় রোমানের

10

তাকে নিয়ে সবার স্বপ্ন ছিল বেশি। রোমান সানাও প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন টোকিও অলিম্পিকসে আলো ছড়ানোর। কিন্তু অল্পের জন্য সুযোগ হাতছাড়া হওয়ায় হতাশ বাংলাদেশের এই তারকা আর্চার। তবে, এরই মাঝে যেন হতাশা ঝেড়ে ফেলেছেন তিনি, দেখতে শুরু করেছেন নতুন স্বপ্ন। আট বছর পর লস এঞ্জেলস আসরে দেশকে সোনার পদক এনে দিতে চান রোমান। টোকিও অলিম্পিকসের আর্চারি ইভেন্টের রিকার্ভ পুরুষ বিভাগের শেষ ষোলোয় মঙ্গলবার কানাডার প্রতিপক্ষ ক্রিসপিন ডুয়েনাসের কাছে ৬-৪ সেট পয়েন্টে হেরে যান রোমান। ইউমেনোশিমা ফিল্ডে ৪-৪ ড্রয়ের পর পঞ্চম সেটে গড়িয়েছিল ম্যাচের ভাগ্য।

শেষ শটে রোমান মারেন ৮, ডুয়েনাস ৯। অথচ শেষ শটে ১০ স্কোর হলে জয়ের হাসি হাসতে পারতেন বাংলাদেশের আর্চারই। আশা জাগিয়েও পরের ধাপে উঠতে না পারার হতাশা স্বাভাবিকভাবেই আছে। তবে খারাপ লাগা ঝেড়ে ফেলে ওয়ার্ল্ড আর্চারির অফিসিয়াল ফেইসবুক পেজে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় জানালেন তিনি। দিলেন আকাশ ছোঁয়ার প্রতিশ্রুতি। “আমি আসলেই একটু হতাশৃ.জয়ের জন্য দরকার ছিল ১০। ম্যাচটা জয়ের খুবই ভালো সুযোগ ছিল আমার।” “আমার লক্ষ্য ২০২৮ সালের অলিম্পিকের সোনা। তাই ২০২৪ সালের অলিম্পিকসও (প্যারিসে) তো খেলব। সর্বোচ্চটাই দিব আমি।”

২০১৯ সালে নেদারল্যান্ডসে হওয়া বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে রিকার্ভ পুরুষ এককে ব্রোঞ্জ জিতে বাংলাদেশকে সরাসরি অলিম্পিকে খেলার টিকেট এনে দিয়েছিলেন রোমান। টোকিওতে যাওয়া দেশের ছয় অ্যাথলেটের মধ্যে কেবল তিনিই সরাসরি অলিম্পিকে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিলেন। এলিমিনেশন রাউন্ডে তার শুরুটাও হয়েছিল জয় দিয়ে। গ্রেট ব্রিটেনের টম হলকে ৭-৩ সেট পয়েন্টে হারিয়ে শেষ ষোলোয় উঠেছিলেন তিনি। র‌্যাঙ্কিং রাউন্ডে ৬৬২ স্কোর গড়ে ৬৪ প্রতিযোগীর মধ্যে ১৭তম হয়েছিলেন রোমান। টোকিওর আসরে এর আগে রিকার্ভ মিশ্র দ্বৈতে দিয়া সিদ্দিকীকে সঙ্গে নিয়ে রোমান পার হতে পারেননি শেষ ষোলোর বৈতরণী। দক্ষিণ কোরিয়ার জুটির কাছে হেরে যান ৬-০ সেট পয়েন্টে।