অভিবাসী উদ্ধারে ইতালির নতুন নিয়ম

3

ভূমধ্যসাগরে বেসরকারি সংস্থার বিভিন্ন জাহাজের উদ্ধার অভিযানের বিষয়ে নতুন ডিক্রি জারি করেছে ইতালির সরকার। ফলে সমুদ্রে নিয়োজিত জাহাজগুলো তাদের কার্যক্রম সীমিত করতে বাধ্য হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। নতুন এই ডিক্রিতে জানানো হয়েছে, কোনো উদ্ধারকারী জাহাজ একই সময়ে সমুদ্রে একাধিক অভিযান পরিচালনা করবে না। অর্থাৎ উদ্ধার অভিযান শেষ হলে সমুদ্রে নতুন কোনো উদ্ধারকাজে না গিয়ে জাহাজটিকে প্রথমে নির্ধারিত বন্দরে ফিরতে হবে। নতুন এই ডিক্রিতে আরো জানানো হয়, উদ্ধারকৃত অভিবাসীদের অবশ্যই বোর্ডে অবহিত করতে হবে যে তারা আশ্রয়ের জন্য আবেদন করবে কিনা এবং কোন ইউরোপীয় দেশে তারা আশ্রয়ের জন্য আবেদন করতে চায়। বন্দরে নামার আগে বোর্ডে থাকার সময় তাদের একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে। এছাড়া নিয়ম ভঙ্গ করলে জাহাজের নাবিককে ৫০ হাজার ইউরো পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে। লঙ্ঘনকারী জাহাজ এমনকি ইতালীয় বন্দর কর্তৃপক্ষ দ্বারা বন্দরে আটক বা আটক করা যেতে পারে। প্রসঙ্গত, জার্মানি, স্পেন ও নরওয়েসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশের বেসরকারি সংস্থার জাহাজ ভূমধ্যসাগরে উদ্ধার তৎপরতা চালায়। এশিয়া ও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ থেকে হাজার হাজার অভিবাসী সাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপে পৌঁছানোর চেষ্টা করে। ঝুঁকিপূর্ণ এ যাত্রায় প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। এমন পরিস্থিতিতে ঝুঁকিতে থাকা অভিবাসীদের সহায়তার জন্য বেসরকারি সংস্থার এসব জাহাজ সাগরে উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে। সাধারণত এই জাহাজগুলো একবার সমুদ্রে তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী বেশ কয়েক জায়গা থেকে উদ্ধার করে। উদ্ধারের পর তাদের বেশিরভাগই ইতালীয় বন্দরে আনলোড করার জন্য আবেদন করে। গত বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে ইতালির প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনি জানান, তার সরকার অভিবাসনকে আন্তর্জাতিক ইস্যু হিসেবে ফিরিয়ে আনতে চায়। তিনি দাবি করেন, নতুন এই ডিক্রির ফলে আন্তর্জাতিক আইন মেনেই সাগরে বেসরকারি জাহাজ চলাচল করবে।